মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ৫ মে ২০১৭

ইসলামকে একটি শক্ত ভিত্তির উপর দাড় করানোর জন্য প্রধানমন্ত্রী সব ধরনের ব্যবস্থা গ্রহন করেছেন - বলছেনেএ কে এম এ আউয়াল এমপি


প্রকাশন তারিখ : 2017-05-05

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ০৪ মে ২০১৭॥
 এ কে এম এ আউয়াল এমপি বলেছেন, ইসলামকে একটি শক্ত ভিত্তির উপর দাড় করানোর জন্য প্রধানমন্ত্রী সব ধরনের ব্যবস্থা গ্রহন করেছেন। ইসলামের খেদমতের জন্য বঙ্গবন্ধু ইসলামিক ফাউন্ডেশন প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। জাতির জনকের এই উদ্যোগটিকে বাস্তবে রূপদান করতেই তার কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অগ্রনী ভ’মিকা পালন করে যাচ্ছেন। আজ (০৪ মে, বৃহস্পতিবার) সকালে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের প্রধান কার্যালয়ের সভাকক্ষে আইসিটি বিভাগ আয়োজিত ‘মাহে রমজানের প্রস্তুতি বিষয়ক মতবিনিময় সভা’ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন । বিশেষ অতিথির বক্তব্যে কুষ্টিয়া জেলার সংসদ সদস্য আবদুর রউফ বলেন, পবিত্র কুরআন এমন একটি গ্রন্থ যা কখনোই পুরনো হবে না। তাই শিক্ষাটাকে কুরআনমুখী করতে পারলেই সর্বক্ষেত্রে শান্তি ও সমৃদ্ধি আসবে। 

ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক সামীম মোহাম্মদ আফজাল বলেন, রমজান মাসকে একটি দাওয়াতি মাস হিসেবে সকলের নিকট তুলে ধরার প্রয়াস থেকেই এই উদ্যোগটি গ্রহন করা হয়েছে। সঠিকভাবে কুরআন হাদীস না জানার কারনে আজকাল ভাষার কিছু বিকৃতি ঘটছে। তাই রমজান মাসে সঠিক কুরআন হাদীসের জ্ঞানের আলোকে প্রকৃত ইসলামী শিক্ষা মুসলমানদের মধ্যে ছড়িয়ে দিতে হবে। তিনি বলেন, রমজান মাসে বিভিন্ন পত্রিকায় ইসলাম বিষয়ক লেখা ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ায় সম্প্রচারিত ইসলাম বিষয়ক বিভিন্ন অনুষ্ঠান থেকে বাছাই করে মানসম্মত অনুষ্ঠান ও সেরা লেখকদের পুরস্কার প্রদানের উদ্যোগ গ্রহন করার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিয়েছে ইসলামিক ফাউন্ডেশন। প্রকৃত ইসলামী জ্ঞান ও শিক্ষা প্রচার ও প্রসারের ক্ষেত্রে এই উদ্যোগটি একটি কার্যকরী ভূমিকা রাখবে। প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ায় ইসলামী অনুষ্ঠান সঞ্চালক ও লেখকদের অংশগ্রহনে আয়োজিত এই মতবিনিময় সভায় বিশিষ্ট আলেম-ওলামা ও ইসলামিক ফাউন্ডেশনের কর্মকর্তাবৃন্দও উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত আলোচকবৃন্দ বলেন, অভিজ্ঞ আলেমদের মাধ্যমে মিডিয়াতে শুদ্ধ আকীদা ও ঈমানের বিষয়গুলো প্রচার করতে হবে। আলেম ওলামারা ঐক্যবদ্ধ হতে পারলে ইসলামের বিকৃত প্রচার অনেকাংশেই রোধ করা সম্ভব। ইসলামী যেসব বিষয় নিয়ে মতবিরোধ আছে সেইসব বিষয় নিয়ে দেশের বিশিষ্ট আলেম ওলামাদের সমন্বয়ে দেশবাসীকে ইসলাম বিষয়ে সঠিক দিক নির্দেশনা প্রদানে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের একটি উদ্যোগী ভূমিকা রাখতে পারে বলেও মত প্রকাশ করেন আলোচকবৃন্দ।

 এদিকে আজ সকালে বৃটেনের একটি বিশেষ প্রতিনিধি দল বায়তুল মুকাররম মসজিদ ও ইসলামিক ফাউন্ডেশনের কেন্দ্রীয় লাইব্রেরী পরিদর্শন করেন। এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে দ্বীনী দাওয়াত ও সংস্কৃতি বিভাগের পরিচালক মোঃ মোজাহারুল মান্নান, মসজিদ ও মার্কেট বিভাগের পরিচালক মোঃ মহিউদ্দিন মজুমদার, উপ-পরিচালক মোঃ আনিসুর রহমান সরকার, সহকারি পরিচালক হারেস সিনহা, সাবেক পরিচালক ডা. খিজির হায়াত খান, মু. হারুনুর রশীদসহ কর্মকর্তা-কর্মচারিরা উপস্থিত ছিলেন।


Share with :
Facebook Facebook