মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ৩১st জুলাই ২০১৭

সমাজে শান্তি প্রতিষ্ঠার জন্য এসডিজি একটি পূর্ণাঙ্গ দলিল-বলেছেন সিনিয়র সচিব ড. শামসুল আলম


প্রকাশন তারিখ : 2017-07-30

ঢাকা, শনিবার, ২৯ জুলাই ২০১৭॥ 
    পরিকল্পনা কমিশনের সদস্য সিনিয়র সচিব ড. শামসুল আলম বলেন, সমাজে শান্তি প্রতিষ্ঠার জন্য টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট (এসডিজি) একটি পূর্ণাঙ্গ দলিল। ঈমানের ক্ষেত্র তৈরির জন্য এসডিজির প্রতিটি লক্ষ্যমাত্রা এক একটি পিলার। এসব লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত হলে জীবনমান আরো সুন্দর হবে। তিনি আজ (২৯ জুলাই শনিবার) দুপুর ২.০০টায়  রাজধানীর আগারগাঁওস্থ ইসলামিক ফাউন্ডেশন সভাকক্ষে ‘টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট (এসডিজি) অর্জনে ধর্মীয় নেতৃবৃন্দের সম্পৃক্তকরণ’ শীর্ষক মতবিনিময় সভায় এসব কথা বলেন। তিনি আরো বলেন, এসডিজি একটি চুক্তিপত্র। আর চুক্তি বাস্তবায়নে ইসলাম সর্বাধিক গুরুত্বারোপ করেছে। তিনি এসডিজি বাস্তবায়নে আলেম-ওলামাদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানান।  
এর আগে প্রথম সেশন সকাল ১১.৩০ টায় অনুষ্ঠিত ‘দারুল আরকামসহ বাংলাদেশে দ্বীনি শিক্ষার কারিকুলাম ও সিলেবাস পর্যালোচনা এবং এসডিজি অর্জনে ওলামায়ে কেরাম’ শীর্ষক  মতবিনিময় সভায় ধর্মসচিব মোঃ আব্দুল জলিল বলেন, নৈতিকতা শিক্ষা ও ধর্মীয় মূল্যবোধ ছাড়া কোন শিক্ষাই পূর্ণাঙ্গ শিক্ষা হতে পারে। তিনি নৈতিকতা শিক্ষার ওপর গুরুত্বারোপ করেন। তিনি আরো বলেন, এমডিজি অর্জনে বাংলাদেশের সাফল্য ঈর্ষণীয়। এরই ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশ এসডিজি বাস্তবায়নে সফলতা অর্জন করবে। ধর্মসচিব বলেন, এসডিজি বাস্তবায়নের লক্ষ্যে বাংলাদেশ উন্নয়নের মহাসড়কে অবস্থান করছে। তাই উন্নয়নকে টেকসই ও বেগবান করতে তিনি ইমাম ও আলেম সমাজকে সক্রিয় ভূমিকা পালনের আহ্বান জানান।
একইদিন বেলা ১.০০ টায় ইউনিসেফ এর সাথে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে ইউনিসেফ এর বাংলাদেশ প্রতিনিধি এডওয়ার্ড বিগব্রেইডার বলেন, স্বাস্থ্য পরিচর্যা, শিশু সুরক্ষা, পরিচ্ছন্নতা ও হাত ধোয়া, এইচআইভি/এইড্স, শিশু নির্যাতন ও বাল্য বিবাহ প্রতিরোধসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে ইউনিসেফ ইসলামিক ফাউন্ডেশনের সাথে একসাথে কাজ করবে। এসডিজি-এর লক্ষ্যমাত্রা অর্জনেও ইসলামিক ফাউন্ডেশন ও ইউনিসেফ যৌথভাবে কাজ করবে। ইতোমধ্যে এই দুই সংস্থার একসাথে কাজ করার জন্য কর্মপরিকল্পনা গ্রহণ ও বাস্তবায়ন কৌশল নির্ধারণ করা হচ্ছে। 
ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক সামীম মোহাম্মদ আফজাল-এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় অন্যান্যের মধ্যে ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের যুগ্মসচিব মোঃ হাফিজুর রহমান, মসজিদভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা কার্যক্রম প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক (যুগ্মসচিব) জুবায়ের আহমদ, মাদ্রাসা বোর্ডের সাবেক চেয়ারম্যান মোঃ আবদুন নূর, ঢাকা আলীয়া মাদ্রাসার সাবেক প্রিন্সিপাল প্রফেসর ড. এ কে এম ইয়াকুব হোসাইন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মসজিদের খতিব ড. সৈয়দ এমদাদ উদ্দিন, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. আহমদ আবুল কালাম, মাসিক আদর্শ নারী পত্রিকার সম্পাদক মুফতী আবুল হাসান শামসাবাদী, তেজগাঁও মদীনাতুল উলুম কামিল মাদ্রাসার প্রিন্সিপাল মাওলানা মোঃ আবদুর রাজ্জাক, মিরপুরের জামিয়া আরাবিয়া মাদ্রাসার প্রিন্সিপাল মাওলানা সৈয়দ ওয়াহিদুযযামান ও শেখ উবায়দুল্লাহ বিন সাঈদ জালালাবাদীসহ শতাধিক আলেম-ওলামা এতে অংশ নেন

 


Share with :
Facebook Facebook